উজানচর কে এন উচ্চ বিদ্যালয় টানা চতুর্থবারেরমত শতভাগ পাস

366

চ্যানেল ব্রাহ্মণবাড়িয়া ডেস্কচ্যানেল ব্রাহ্মণবাড়িয়া ডেস্ক: ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাঞ্ছারামপুর উপজেলার উজানচর কে এন উচ্চ বিদ্যালয়ে এবারওএসএসসি পরীক্ষায় শতভাগ শিক্ষার্থী কৃতকার্য হয়েছে। এনিয়ে পরপর চার বার এইবিদ্যালয় শতভাগ পাসের হারের কৃতিত্ব ধরে রেখেছে।বাঞ্ছারামপুর উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের তিতাস নদের পাড়ে বিদ্যালয়টিঅবস্থান। ১৮০৫সালে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করা হয়। এবছর এসএসসি পরীক্ষায় এইবিদ্যালয় থেকে ১১০জন অংশ নেয়। তাদের মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ২৬জন,মানবিক শাখা থেকে ৩৯জন ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে ৪৫জন এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়। বিদ্যালয় থেকে ১১০জন শিক্ষার্থীই কৃতকার্য হয়েছে। পাসের হারশতভাগ। বিজ্ঞান বিভাগ জিপিএ-৫ পেয়েছে ১২জন।বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বিদ্যালয়ের দক্ষিণপাশে রয়েছে তিতাস নদ। নির্মল বাতাস ও সবুজ  ঘেরা পরিবেশে শিক্ষার্থীরা স্বাচ্ছন্দে পড়ায়মনোনিবেশ করতে পারে। বর্তমানে বিদ্যালয়ে ১ হাজার ১৫০ জন শিক্ষার্থী ও ২২জন শিক্ষক রয়েছে। পাশাপাশি বিদ্যালয়ে একটি পাঁচতলা ভবন, একটি দুই তলা বিশিষ্ট একাডেমিক ভবন, তিনতলা একটি আরেকটি ভবন, বিশিষ্ট একটি কম্পিউটারশিক্ষা ভবন, কারিগরি শাখার জন্য একটি তলার ভবন রয়েছে।এর আগেও ২০১৭ সালে বিদ্যালয়ের মানবিক শাখা থেকে ৩৫জন, ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে ৪৮জন ও বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ৩৬ জন অংশ নিয়ে শতভাগ শিক্ষার্থীকৃতকার্য হয়েছে। জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১২জন শিক্ষার্থী। ২০১৭ সালে এইবিদ্যালয়ই পুরো জেলার মধ্যে শতভাগ পাশ করা একমাত্র বিদ্যালয় ছিল।২০১৮ সালে বিদ্যালয়ের মানবিক শাখা থেকে ১৬জন, ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে২৫জন ও বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ২২ জন অংশ নিয়ে শতভাগ শিক্ষার্থী কৃতকার্যহয়েছে। জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৫জন শিক্ষার্থী।২০১৯ সালে বিদ্যালয়ের মানবিক শাখা থেকে ২৫জন, ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে২৫জন ও বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ৩৬ জন অংশ নিয়ে শতভাগ শিক্ষার্থী কৃতকার্যহয়েছে। তখন জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৫জন শিক্ষার্থী।
বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মো. আসাদুজ্জামান ও পরিচালানা কমিটির সভাপতি বলেন, সাবেক কৃষিমন্ত্রী এম কে আনোয়ার, বিশেষ নিরাপত্তাবাহিনীর (এসএসএফ) সাবেক মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাহাব উদ্দিন সিকদার,
বিজ্ঞানী আবু জাহের, ভারতের কলকতা বোর্ডে মেধা তালিকায় তৃতীয় স্থান করা এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়রে ভাইস চ্যাঞ্চেলর রাখাল দেবনাথ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান তাহেরুল ইসলামসহ আরো অনেক এই বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিল।স্থানীয় সংসদ সদস্য ক্যাপ্টেন (অব:) এবি তাজুল ইসলামএর সার্বিক তদারকির কারণে স্কুলের উন্নয়ন ও শিক্ষার মান ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও উজানচর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য কাজীজাদিদ-আল-রহমান  বলেন, ২০১৭ সালে পুরো জেলায় এই বিদ্যালয়ই শতভাগ পাসের কৃতিত্ব অর্জন করেছিল। ২০১৭ সাল থেকে ২০২০ সালের ঘোষিত ফলাফল
অনুযায়ী পরপর চার বার শিক্ষক শিক্ষার্থী ও তাদের অভিাভবকদরে অক্লান্ত পরিশ্রমের কারণেই ফলাফলের এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পেরেছি আমরা। তিনি
শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান।বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তপন চন্দ্র সূত্রধর বলেন, বিদ্যালয়ের শিক্ষকরাঅনেক পরিশ্রমী। শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা শিক্ষকদের কথা মন দিয়েশুনেছেন। আমরা একজন দক্ষ ও শিক্ষিত সভাপতি পেয়েছি যিনি ইংরেজী সাহিত্যে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন। তার দিক নির্দেশনায় আমাদের অনেক কাজে এসেছে।