ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মারা যাওয়া দুজনই করোনা পজেটিভ

736

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে মারা যাওয়া মালয়েশিয়া প্রবাসী ও আখাউড়ায় মারা যাওয়া নারায়ণগঞ্জ ফেরত নারীর করোনা টেস্টের রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে।

তারা দুজন করোনাক্রান্ত ছিলেন বলে নিশ্চিত করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ একরাম উল্লাহ ও নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অভিজিৎ রায়।

সিভিল সার্জন জানান, গত ৯ এপ্রিল ভোররাত সাড়ে তিনটার দিকে ৪০ বছর বয়সী ওই নারী মারা যান। স্বামীসহ নারায়ণগঞ্জে বসবাস করা ওই নারী করোনার উপসর্গ নিয়ে ৮/১০ দিন আগে আখাউড়া উপজেলার রাণীখার গ্রামে স্বামীর বাড়িতে ফিরে আসেন। কিন্তু তিনি জ্বর ও সর্দি-কাশি থাকার বিষয়টি গোপন রেখেছিলেন। তিনি মারা যাওয়ার পর  গ্রামবাসীর মাধ্যমে খবর পেয়ে আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে মেডিকেল টিমের সদস্যরা ওই নারীর নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠায়। 

এ বিষয়ে আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাহমিনা আক্তার রেইনা জানান, পুরো রাণীখার গ্রাম লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া ওই নারীর পরিবারের সদস্য ও তার প্রতিবেশীসহ ১৭ জনের নমুনা সংগ্রহ করে টেস্টের জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

এদিকে নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অভিজিৎ রায় জানান, গত ৭ এপ্রিল শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা যাওয়া নাসিরনগর উপজেলার জেঠাগ্রামের বাসিন্দা ৩৫ বছর বয়সী মালয়েশিয়া প্রবাসীর করোনাভাইরাস রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। গত ১৮ মার্চ তিনি মালয়েশিয়া থেকে দেশে ফিরে হোম কোয়ারেন্টিন পালন করেন। গত ১ এপ্রিল তাঁর হোম কোয়ারেন্টিন শেষ হয়।  

এরপর তিনি একই উপজেলার অন্য গ্রামে তার শ্বশুরবাড়িতে চলে যান। সেখানে থাকাবস্থায় গত ৪ এপ্রিল তার শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দেয়। এরপর রক্ত পরীক্ষা করা হলে টাইফয়েড ধরা পড়ে। এরপর ৭ এপ্রিল রাতে তিনি মারা যান। পরে ওই প্রবাসীর গ্রামের বাড়ি ও তার শ্বশুরবাড়ি লকডাউন করে দেয় উপজেলা প্রশাসন।

নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দিতে গিয়ে যেসব চিকিৎসক ও মেডিকেল স্টাফরা ওই প্রবাসীর সংস্পর্শে এসেছেন তাদের ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত নেয়া হবে, যোগ করেন ডা. অভিজিৎ।

মাসুক হৃদয়, নিজস্ব সংবাদদাতা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া