ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে নকল সাবান কারখানায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমান নকল সাবান ও সাবান তৈরির সরঞ্জামাদি উদ্ধার করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। গতকাল বুধবার দুপুরে দরিয়াদৌলত গ্রামের খানে পাড়ার শাকিল মিয়ার বাড়িতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও বিচারীক হাকীম মোহাম্মদ শরিফুল ইসলামের নেতৃত্বে এই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়। এই সময় ২ হাজার পিছ নকল সাবান, ডিটার্জেন্ট পাউডারসহ প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার মালামল জব্দ করা হয়। এসময় সাবান কারখানার দুই জন কর্মচারীকে ০১ বছর করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। এরা হলেন নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার ওরাইল বাড়ি গ্রামের মুকবুল হোসেনের ছেলে আব্দুছ সালাম (৪৫) ও আরেক জন একই গ্রামে রশিদ মিয়ার ছেলে কামন মিয়া (৪০)। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দরিয়াদৌলত গ্রামের খানে পাড়ায় শাকিল মিয়ার বাড়িতে নকল সাবান ও ডিটার্জেন্ট তৈরি হচ্ছে এই সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল বুধবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও বিচারী হাকিম মোহাম্মদ শরিফুল ইসলামের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এই সময় নকল দুই হাজার পিছ বল সাবান, ৩০০ পিছ খালি প্যাকেট, ৫০০ পিছ খালি মোড়ক, সাবান তৈরির মেশিন ০১টি, সাবান তৈরির সোডা ১৮ বস্তা সহ প্রায় ১৫/১৬ লাখ টাকার মালামাল জব্দ করা হয়। এসময় সাবান কারখানার দুই জন কর্মচারীকে ০১ বছর করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। এরা হলেন নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার ওরাইল বাড়ি গ্রামের মুকবুল হোসেনের ছেলে আব্দুছ সালাম (৪৫) ও আরেক জন একই গ্রামে রশিদ মিয়ার ছেলে কামন মিয়া (৪০)। এখানে দীর্ঘদিন যাবত নকল বিভিন্ন কোম্পানির সাবান ও ডিটার্জেন্ট পাউডার তৈরা করা হচ্ছিল। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও বিচারী হামিক মোহাম্মদ শরিফুল ইসলাম জানান,‘‘দীর্ঘদিন যাবত এই বাড়িতে নকল সাবান ও ডিটার্জেন্ট পাউডার তৈরি হয়ে আসছিল। এই সংবাদ পেয়ে আমি মোবাইল কোট পরিচালনা করি। এই সময় নকল সাবান ও ডিটার্জেন্ট পাউডার সহ প্রায় ১৫/১৬ লাখ টাকার মালামাল জব্দ করা হয় এবং দুই জন কর্মচারীকে ০১ বছর করে বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়।